LOADING

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়োগের ইন্টারভিউে জাল তপশীলি উপজাতি শংসাপত্র জমা দেবার অভিযোগ|

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি পদে নিয়োগের ইন্টারভিউে জাল তপশীলি উপজাতি শংসাপত্র জমা দেবার অভিযোগ করল দুটি আদিবাসী সংগঠন| Jadavpur University Santal Students Welfare & Cultural Association (JUSSWCA) ও All Adibasi Sadri Susar Association (AASSA) নামক দুই আদিবাসী সংগঠনের অভিযোগ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাসিস্ট্যান্ট এক্সামিনেশন কন্ট্রোলার (Assistant Examination Controller) পদে ইন্টারভিউ প্রার্থীদের যে তালিকা প্রকাশ হয়েছে তার মধ্যে উজ্জল কুমার মণ্ডল নামে এক ব্যাক্তি নিজেকে তপশীলি উপজাতি বা Scheduled Tribe (ST) হিসেবে দাবী করলেও আদতে তা নয়| বিষয়টি নিয়ে দুই আদিবাসী সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ ও জাতীয় তপশীলি উপজাতি কমিশন (National Commission for Scheduled Tribe) এ অভিযোগ জানিয়েছে|

জানা গিয়েছে যে গত ২৫ শে নভেম্বর, ২০১৯ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের থেকে ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। সেই বিজ্ঞপ্তিতে লেখা থাকে অ্যাসিস্ট্যান্ট এক্সামিনেশন কন্ট্রোলারের ইন্টারভিউ হবে এবং সেই ইন্টারভিউয়ের মধ্যে এক ST Category মধ্যে দেখা যায় একজন মন্ডল নামক অর্থাৎ উজ্জ্বল কুমার মন্ডল নামক একজন ব্যক্তি সে তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার করে। ইন্টারভিউ নেবার তারিখ ২রা ডিসেম্বর ২০১৯| বিষয়টি নজরে আসতেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী সাঁওতাল ছাত্রছাত্রীদের সংগঠন Jadavpur University Santal Students Welfare & Cultural Association (JUSSWCA) এর পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর এর সাথে দেখা করে অভিযোগ জানানো হয়| প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলরকেও বিষয়টি জানানো হয়| প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর ছাত্রছাত্রীদের সাথে কথা বলে আশ্বস্ত করেন যে তিনি খুব শীঘ্রই এই ব্যাপারটি খতিয়ে দেখবেন এবং সেই ব্যক্তির বিরুদ্ধে যথাযথ তদন্ত করা হবে।
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ এই ঘটনার সাথে কয়েকটি বিষয় উঠে আসে সেটি হল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এই জাতি শংসাপত্র খতিয়ে দেখার বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে অনবরত অবহেলা করে চলেছেন। বিভিন্ন NON-ST পদবী ছাত্রছাত্রীরা আজ এখানে ST কোটা তে ভর্তি হয়েছে। তাদের মধ্যেই পাল, চৌধুরী, নাথ, দেবনাথ, বর্মন বিভিন্ন পদবীর লোকেরা আদিবাসী পরিচয়ে ST QUOTA তে ভর্তি হচ্ছে। আদিবাসী ছাত্রছাত্রীদের আরো অভিযোগ বিভিন্নভাবে অ-আদিবাসী ছেলেমেয়েরা আদিবাসী পরিচয় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের হোস্টেলে ST কোটায় ভর্তি হয়ে আসন দখল করে নিচ্ছে এবং এর ফলে আসল আদিবাসী ছেলেমেয়েরা হোস্টেল পাচ্ছেনা| সে ব্যাপারটি আদিবাসী ছাত্রছাত্রীরা তথ্যসহ কর্তৃপক্ষকে জানায় এবং তারা সেটাও খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেয়।
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আদিবাসী ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ
জাল তপশীলি উপজাতি শংসাপত্র জমা দিয়ে সুযোগ সুবিধে নেবার ব্যাপারটা শুধু যাদবপুরে না, পুরো রাজ্যে এমনকি সারা ভারত জুড়েই এরকম দুর্নীতি হচ্ছে। আজ যদি আমরা সচেতন না হই তাহলে আমরাও চাকরি পাব না এবং আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম তারা আমাদের থেকে দশগুণ বেশি কষ্ট ভোগ করবে ।এবং তারা তো কোনদিন চাকরিও পাবেনা ,আর শিক্ষার পড়াশোনার অধিকার থেকে বঞ্চিত হবে|

Please follow and like us:
error20

Wordpress Social Share Plugin powered by Ultimatelysocial